Archive for August, 2010

বর্তমান সময়ে উবুন্টু/মিন্ট নিয়া বেশ ভালোই চিল্লা-পাল্লা শুরু হইছে। আর যদি কোন মতে নতুন ইউজার হইতে পারে তাহলে তো আর কোন কথাই নাই….এক্কেবারে চিল্লানির চোটে দুনিয়াদারি আন্ধার বানাইয়া ফেলায়(আমি নিজেও এই দলের এক গর্বিত সদস্য ;))। আইজ এই ক্যাঁচাল তো কাইল ওই ক্যাঁচাল….এই নিয়া চিল্লা-পাল্লা চলতেই থাকে। যেন চিল্লানি আর থামে না। আর কোন মতে যদি পরিচিত উবুন্টু ইউজার (মুরুব্বি টাইপের) পাইয়াই যায় ..তাইলে আর কোন কথা নাই। প্রোবলেম সলভ করতে করতেই ও বেচারার জান কয়লা হইয়া যাইবো। ভাবতাছেন এইসব কি কইতাছি….??? ভাই, গুল মারতাছি না… এক্কেবারে হাচা কথা। আমি নিজেই এই কাম করছি। কতোজনারে রাইত-বিরাইতে ফোন দিয়া যে রাইতের আরামের ঘুম হারাম করছি তা খালি… আমি, খোদা আর আমার জ্বালায় জর্জরিত ওই ব্যক্তিই জানে। (more…)

Advertisements


গত ২৩ জুলাই,২০১০ তারিখে ‘বন্টু-মিন্টুর আড্ডা’-তে গিয়ে দেখলাম, আগত অতিথিদের অনেকেই প্রশ্ন  করেছিলো উবুন্টু/মিন্টে কি করে সিটিসেল জুম আল্ট্রা’র মোডেম কনফিগার করতে হয়…??তখনই আন্দাজ করলাম যে, এই কাজটা করতে বোধয় একটু বেশীই কাঠ-খড় পোড়ানো লাগে। ব্যক্তিগত ভাবে সিটিসেল ব্যবহার না করার কারণে কখনো এই ঝামেলার সম্মুখিন হই নি। তবুও এই প্রশ্নের উত্তর খোঁজার জন্য বিভিন্ন ব্লগ ঘাটতে থাকলাম। এক সময় দু’টো সমাধান পেয়ে গেলাম।   কিন্তু এর একটা উপায়ও আমি নিজে পরীক্ষা করে দেখতে পারি নি। আপনারাই পরীক্ষা করে দেখুনতো কাজ করে কিনা…. (more…)


বেশ কিছুদিন আগে জিন্নাত ভাইয়ের ব্লগে এই লেখাটা পড়েছিলাম। প্রচুর হেসেছিলাম লেখাটা পড়ে। আসলেই তো….. আমরা না ডিজিটাল বাংলাদেশে বাস করছি…..??? সুতরাং আমরা তো ডিজিটাল বাংলার ডিজিটাল বাসিন্দা।আমাদের জীবনের সব ক্ষেত্রেই লেগেছে প্রযুক্তির  ছোঁয়া।

তবুও জীবনের কিছু  দিক এই বিশেষ ছোঁয়া থেকে বাদ পড়তে পারে। যেমন, বিয়া-সাদি। অ্যানালগ যুগে তো বাপের কাছে ট্যাকা চাইয়া বহুত পত্র লেখছেন। কিন্তু এই ডিজিটাল জামানায় আইসা নিজের জন্য বৌ খুঁজতে কইয়া বাপের কাছে ক্যামনে ডিজিটাল পত্র লিখতে হয় তার নমুনা নিচেই দেখুন…. (more…)

৯২ বা ৯৩ সালের কথা, বাবা তখন সাতক্ষীরাতে। মায়ের চাকরির সুবাদে আমি আর মা তখন ঝালকাঠীতে থাকতাম। বাবা হয়তো মাসে একবার করে আসতো। এলে খুব মজাই হতো। ছোটবেলা থেকেই বাবার সাথে সম্পর্কটা বন্ধুর মতোই। যাই হোক, যত কথাই হোক তার সাথে শেয়ার করা চাই। একবার সাতক্ষীরা থেকে ফেরার সময় বাবা একটা ইয়াশিকা ক্যামেরা নিয়ে হাজির। ক্যামেরা হাতে পেয়ে আমার তো মহানন্দ। অবশ্য এর আগে কখনো ক্যামেরা হাতে নিয়েছি বলে মনে পড়ে না। যাক, এবার ছবি তোলার পালা…প্রথম দিকের কটা ছবি বাবা নিজেই তুলতো। এরপরে ক্যামেরা এলো আমার হাতে। দেখিয়ে দেয়া হল কি করে ফাইন্ডার দিয়ে কাউকে দেখে ফ্রেমে আটকাতে হয়। জীবনে প্রথমবার ছবি তুলতে যাছি , একে তো চরম উত্তেজনা কাজ করছে অন্য দিকে ভয় করছে …যদি ক্যামেরা হাত থেকে পড়ে যায়..?? তবুও সেই কাঁপা কাঁপা হাতেই শাটার টিপতে পেরেছিলাম। এখনো মনে আছে প্রথম ছবিটা বাবা’র-ই তুলেছিলাম। (more…)

অবশেষে উবুন্টুতে আসতে পেরে ভালোই লাগছে । অন্তত এজন্য যে এই অপারেটিং সিস্টেম ইন্সটলের পর পরই “your computer might be at risk” নামক বার্তাটা দেখায় না। বলে না এন্টিভাইরাস ইন্সটলের প্রয়োজনীয়তার কথা। কিন্তু বহুদিনের উইন্ডোজ ব্যাবহারের পর এরকম কথাবার্তা বিশ্বাস করতে মন চাইল না। আসলেই কি লিনাক্সে ভাইরাস হয় না বা নেই? (more…)


উবুন্টু বা মিন্ট নিয়ে বিভিন্ন লেখা পড়তে বেশ ভালোই লাগে। আর মনে ধরার মত কোন লেখা চোখে পরলেই হল…..সেটা হাতছাড়া করতে একেবারেই নারাজ।

যেহেতু ব্লগ ইনফোতে আগেই লিখে দিয়েছি, ভালো লাগার মত কোন লেখা চোখে পড়লে মূল লেখার লিংক উল্লেখ সহ তা প্রকাশ করা হবে।

আজো টেকটিউনসে তেমনই একটা লেখা চোখে পড়লো….. তাই দেরী না করে লেখাটা প্রকাশ করে দিলাম…..

লেখাটির মূল লেখক মোঃ তারিক মাহমুদ।

আর মূল লেখার লিংক এখানে (more…)

ইদানিং আমাদের মধ্যে একটা চল শুরু হয়েছে, আমরা টিভি সিরিয়াল, সিনেমা বা কম্পিউটার গেইমস্ ডাউনলোড করি। কেনো? বাজারের সিনেমার ডিভিডিগুলিতে কথা কাজের মিল থাকেনা, বেশীরভাগই ভালো কোয়ালিটির হয়না। আর গেইমস্ কিনে আনলে দেখা যায় ভেতরে শত শত ভাইরাস দিয়ে ভরা। তাই অগত্যা ডাউনলোড করতেই হয়। ডাউনলোড করার জন্য আছে দুই রকম প্রযুক্তি, একটি বিট্‌টরেন্ট, অন্যটি এইচটিটিপি। আমাদের দেশের ইন্টারনেট থেকে বিট্‌টরেন্টে তুলনামূলক কম গতি পাওয়াযায় বিধায় আমরা এইচটিটিপি ব্যবহার করি। এখন এইচটিটিপি আবার আরেক ঝামেলা। যারা ফাইলগুলি আমাদের সাথে শেয়ার করে, তারা ফাইল হোস্ট করার জন্য বিভিন্ন সেবা ব্যবহার করে; যেমন: ড়্যাপিডশেয়ার, মেগাআপলোড, নেটলোড, মেগাশেয়ার ইত্যাদি। (more…)